ঐশীর নয় সমাজের ফাঁসি চাই !

বাবা-মা কে হত্যার দায়ে ঐশী রহমানকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত । পিতা-মাতা হ্ত্যার উপযুক্ত সাজা পেয়েছে ঐশী। এ রায়ে অনেক পিতা-মাতাই নিশ্চিন্তে রাতে ঘুমাতে পারবেন যে ঐশীর বিচারের রায়ের পর হয়তো তাদের নেশা গ্রস্হ সন্তান তাদের আর কোন অত্যাচার করবে না তারা হয়তো ভয় পাবে ! কিন্তু সত্যিই কি তাই ?  যে অপরাধে ঐশীর ফাঁসির রায় হল, সে অপরাধ কিন্তু আমদের সমাজে নতুন কিছু নয় । পত্রিকার পাতায় প্রায় ই সংবাদ শিরোনাম হয় এই একই ঘটনা , তাই প্রশ্ন আসে যে অপরাধে ঐশীর ফাঁসির রায় হল, সে অপরাধ কি ঐশীর একা ? আমাদের সমাজ তথা রাষ্ট্র কি এ অপরাধের দায় এড়াতে পারে ? ঐশী মাদকাসক্ত ছিল আর নেশার টাকার জন্যই খুন করে বাবা-মা কে , একজন ঐশীর মৃত্যুদন্ড হলে ও আমাদের সমাজের লাখো ঐশীরা আজ মাদকের নেশায় বুদ নিজেদের নিশ্চিত ধংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে এরই সাথে ধংসের মুখে ঠেলে দিচ্ছে আমাদের সমাজকে ! যে সমাজ আজ মাদকের ছোবলে আক্রান্ত এক ঐশীকে ফাঁসি দিয়ে কি সে ছোবল থেকে রক্ষা করা যাবে আমাদের সমাজকে ? ঐশীর বাবা মাহফুজুর রহমান ছিলেন একজন পুলিশ অফিসার অথচ ঐশীর নাকি মাসে হাত খরচ ই ছিল লাখ টাকার অধিক , স্বাবাভিক ভাবেই প্রশ্ন আসে যে মেয়ে মাসে লাখ টাকার অধিক হাত খরচ  করতো তার বাবার মাসিক আয় কত হতে পারে ? আমাদের প্রায় সবার ই জানা যে একজন পুলিশ অফিসার মাসিক বেতন কত , এ পর আর বুঝতে বাকি থাকে না যে ঐ টাকার প্রায় সম্পুর্নটা ই ছিল অবৈধ আয়ের । যে বাবা-মা তাদের অবৈধ আয়ের কারি কারি টাকা তাদের তরুন বা কিশোর সন্তানের হাতে হাত খরচের নামকরে  তুলে দেয় সে সন্তান যে বিপথে চলে যাবে এটাই স্বাবাভিক । ঐ বখে যাওয়া সন্তান যে কোন অপরাধ করবে এটাই বাস্তব আর সেই অপরাধের দায় তখন আর শুধু সেই সন্তানের কাধে চাপালেই শেষ হয়ে যায় না এর দায় বর্তায় তখন পিতা-মাতা সহ সমগ্র সমাজ তথা রাষ্ট্রের উপর। মানুষ যখন অঘাত অবৈধ অর্থ বিত্ত উপার্জন করে তখন নাকি হিতা হিত জ্ঞান হারিয়ে শুধু কামানোর ধান্ধাই ব্যস্ত থাকে সন্তান পরিবার পরিজন কোথায় কিভাবে অর্থ ব্যয় করছে ও সময় পার করছে তার কোন টার ই হিসাব রাখে না । ঠিক তেমন টি ই হয়েছিল মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমান ক্ষেত্রে , তারা ও খোঁজ রাখেন নি যে তাদের প্রিয় সন্তান কোথায় কিভাবে টাকা খরচ করছে কোথায় সময় পার করছে , তাই ঐশীর নেশাগ্রস্হ হওয়া তথা বখে যাওয়ার জন্য কি তার বাবা-মা কম দায়ী ? যে খুনের জন্য ঐশীকে ফাঁসির সাজা পেতে হলে সেই ঐশী মাদকাসক্ত হলো কিভাবে ? আমাদের দেশের এই সদ্য তরুণ-কিশোর ছেলেমেয়েরা মাদক কোথায় পায় ? এ দেশে এত মাদক আসে কোন পথে ? সেই মাদক ব্যবসায়ীদের কেন শাস্তি হয় না ?  আমাদের একশ্রেনীর নিলজ্জ  রাজনৈতিক নেতা  ও প্রশাসনের দুর্নীতিবাজ অফিসাররা মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে যখন কোটি কোটি টাকা রোজগার করে তখন তাদের কেন শাস্তি হয় না ? কথিত আছে আমাদের দেশে মরণ নেশা হেরোইনের আগমন হয়ে ছিল কোন এক ফাষ্ট লেডির ভেনটি ব্যাগের ভিতর থেকে ঠিক বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত মরণ নেশা ইয়াবা ও নাকি এসেছে কোন এমপির লাগেজের চিতর দিয়ে । আমাদের দেশে মাদক যে ভাবেই আসুক না কেন কিন্তু এই মাদক ব্যবসার সাথে যে আমাদের রাজনৈতিক ও প্রসাশনিক কর্তাব্যক্তিরা জড়িত তা অস্বীকার করার উপায় হয়তো কারোই নেই । আজ ঐশীদের বিপথে ঠেলে দিচ্ছে যে সমাজ, যে দুর্নীতি, যে মাদক আর সেগুলোর যারা জন্ম দিচ্ছে তাদের ফাঁসি হবে কবে ? তাদের শাস্তি দেবে কারা ?

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s