রহিম মোল্লার ইহুদী মারার গল্প !

মুসলমানদের দাবি ইহুদী নাসারাদের হত্যাকরতে পারলে ই জান্নাতের সব দরজা খোলা হইয়া যায় আর যে দরজা দিয়া ইচ্ছা সেই দরজা দিয়া জান্নাতে প্রবেশ করা যায় তাই আজ বলবো রহিম মোল্লার ইহুদি মারার গল্প যা ই হউক এবার আসি রহিম মোল্লার ইহুদি মারার গল্পে । রহিম মোল্লা ধর্মীয় ওয়ারিস সূত্রে চারটা বিয়ে করতে পরেন কিন্ত এখনো তার একটা শুন্যস্হান আছে শেষ বয়সে রহিম মোল্লা তার ঐ শুন্য স্হান পূরনে বেকুলা পুরো পুরি ই বেরে গেছে ঘরে যে তিন টা আছে ঐ গুলি দিয়া এখন আর আগের মত তৃপ্তি হয় না বুড়া গরুর মত বিয়ান দিতে দিতে তিনটা ই প্রায় ক্লান্ত বড়টারে ধরতে গেলে শুধু বলে বুড়া কালে জোড় কত দুরে গিয়া হোও । তাই ইদানিং কাছে আর তেমন যাওয়া হয় না রহিম মোল্লার আর ছোট তা ও পাঁচ বিয়ান দিয়া দিছে তাই ছোট টা ভিতরে সার বলতে তেমন কিছু নাই । তাই রহিম মোল্লা মনে মনে ঠিক করছে পৌষ মাসের ওরোস মোবারকের সময় শূন্য স্হান পূরনের শুভ কাজটা সম্পন্ন করবেন পত্রীও মনে মনে ঠিক করে রেখেছেন তাই ই মুরীদ কাইজ উদ্দিনে মেয়ে সামিহা গত ওরোসের সময় কাইজ উদ্দিন সামিহারে সাথে লইয়া আসছিল মাদ্রাসায় ভর্তির দোয়া নিতে তখন রহিম মোল্লা সামিহারে মন খুইলা দোয়া কইরা দিয়েছিল এক বছরে সামিহা অনেক বড় হইয়া গেছে দেখতে শুনতে ও মাশাল্লা । যেই চিন্তা সেই কাজ কাইজ উদ্দিনের কাছে পীর সাহেব হুজুরের প্রস্তাব পীর সাহেব হুজুর কাইজ উদ্দিনের মেয়ের জামাতা হইতে প্রস্তুত শুনেই কাইজ উদ্দিনের চোখের সামনে বেহেস্তের আনা গোনা শুরু হইয়া গেছে পীর সাহেব হুজুর এই অধমের কন্যাকে তার বিবি হিসেবে নিবেন । সব কিছু ঠিক ঠাক পৌষ মাসের পূর্নিমার দিন ওরোস মোবারকের শেষ দিবসে সমিহার সাথে রহিম মোল্লার শুভ বিবাহ সম্পর্ন হলো এবার বাসর রাতের পালা নাবালিকা সামিহা জানেনা স্বামীর কি মর্ম কিন্তু রহিম মোল্লা তো পাকা খেলারি উনি খুব ভাল ভাবেই যানেন কিভাবে কাকে কুপকাত করতে হয় । বাসর রাত তার সাথে অনেক দিনের স্বপ্ন সাবিহাকে কাছে পাওয়ার তাই সামিহা কোন কিছু বুঝার আগের রহিম মোল্লা সবিহার সাথে যৌন খেলা শুরু করতে চাইল সাবিহা তো একেবারে হতভম্ব হয়ে চিৎকার শুরু করলো তখন ই রহিম মোল্লা সামিহা কে ধর্মের বানী শুনাতে শুরু করলো । মহ্ববতের সথে বলতে লাগলো যদি যুদ্ধের ময়দানে এক জন ইহুদী মারা যায় তার জন্য বেহেস্তের সব কয়টা দরজাই খোলা থকবে তিনি চাইলে যে কোন দরজা দিয়া জান্নাতে প্রবেশ করতে পরবেন । সামিহা তো শুনে মহা আনন্দ কখন যুদ্ধ হবে কোথায় ইহুদী পাওয়া যাবে আর কি ভাবেই বা ইহুদী কাতেল করে সামিহা জন্নাতে যাবে ? রহিম মোল্লা সামিহাকে উত্তর খুব সহজ ভাবেই দিয়ে দিল যদি তার সাথে একবার সাবিহা যৌন খেলা খেলে তা হলেই একজন ইহুদী মরে যাবে । ইহুদী মারার ও জান্নাতের লোভে সামিহা রহিম মোল্লার সাথে যৌন খেলায় লিপ্ত হলো । একের পর এক ইহুদী মারতে মারতে রহিম মোল্লা যখন ক্লান্ত তখন ই সামিহা ইহুদীমারার আকাংখা আর জান্নাতের লোভ ভুলে গিয়ে যৌবন জ্বালায় ক্ষিপ্ত । এখন রহিম মোল্লার কাছে সামিহার এক মাত্র দাবি ই সামিহার যৌবনের জ্বালায় নিভানো আর রহিম মোল্লার ফতোয়া সব ইহুদী মারা গেছে বাকীরা সবই মুসলমান ।

**( উপরের নাম গুলি সম্পুর্ণ কাল্পনিক যদি কারো চরিত্রের সাথে মিল থাকে তার জন্য দুঃখিত )

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s